শিশুদের দিয়ে ২ হাজার ইট সরালেন শিক্ষক

0
159

দেশে শিশু শ্রম নিষিদ্ধ হলেও নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরি স্কুলে শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে শ্রমিকের কাজ করানোর অভিযোগ উঠেছে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। ময়লা পরিষ্কার করার কাজ করানো হয়েছে অর্ধশত শিশু শিক্ষার্থীকে দিয়ে। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবকরা। তবে জেলা প্রশাসক জানিয়েছে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।
নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরি স্কুল মাঠে দীর্ঘদিন ধরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে ছিল প্রায় দুই হাজারের মতো ইট। মাঠ পরিচ্ছন্নের উদ্দেশে বুধবার স্কুল চলাকালীন ক্লাস বন্ধ রেখে এ কাজে অর্ধশত শিশু শিক্ষার্থীকে ব্যবহার করেন সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন।
পেশাদার শ্রমিক না এনে দুই হাজারের মতো ইট বহনের কাজটি শিক্ষার্থীদের দিয়ে করানো হয়। সহকারী শিক্ষক শাহীন নিজে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের কাজের তদারকি করেন। এ সময় পাশের বহুতল ভবন থেকে একজন ওই ভিডিও চিত্রটি তার মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ছড়িয়ে দেন।
কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে শ্রমিকের কাজ করানোর ঘটনায় স্কুল কর্তৃপক্ষের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবকরা।
শিক্ষার্থীরা জানান, স্যার বলেছেন কাল খেলা হবে। তাই সবাই মিলে ইটগুলো সরাতে হবে। তাই আমরা কাজটি করেছি।
অভিভাবকরা বলেন, এটা অন্যায় হয়েছে। শারীরিকভাবে বাচ্চাদের ওপর প্রেসার দেয়া হয়েছে।
তবে শিক্ষক শাহীনের দাবি, শিক্ষার্থীরা স্বতঃপ্রণোদিত হয়েই কাজ করেছে। পাশাপাশি বিষয়টিকে খুব হালকাভাবেই দেখছেন প্রধান শিক্ষক।
সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন বলেন, আমাদের স্কাউটের সেভেন ইউটের বাচ্চারা স্বেচ্ছায় কাজটি করেছে। এখানে ব্যথা পাওয়ার তো কিছু দেখছি না।
এ প্রসঙ্গে প্রধান শিক্ষক আব্দুল বারী বলেন, খেলা থাকায় মাঠ পরিষ্কারের জন্য স্কাউট টিম কাজ করেছে।
জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা জানান, ভারী কাজ শিশুদের ওপর চাপিয়ে দেয়া উচিত নয়।
এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের কোনো কর্মকর্তাই ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি না হলেও জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দিন সময় সংবাদকে জানান বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here